সর্বশেষ সংবাদ

বগুড়ায় তালাবন্ধ ফ্লাট বাসা থেকে নির্যাতিত শিশু কাজের মেয়ে উদ্ধার

এশিয়ানবার্তা : বগুড়ায় স্থানীয়দের সহায়তায় তালাবন্ধ ফ্লাটবাড়ী থেকে সেলিনা (৫)নামের এক শিশু কাজের মেয়েকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার দুপুরে শহরের পূর্ব পালশা এলাকার মাহবুব ভিলা নামের একটি ফ্লাটবাড়ী থেকে ওই শিশুটিকে উদ্ধার করে হেফাজতে নেয় পুলিশ । একমাত্র নিজের নাম এবং পীরগঞ্জ ছাড়া শিশুটি তৎক্ষনাত আর কিছু বলতে পারেনি।

জানা গেছে, পূর্ব পালশা এলাকার মাহবুবুর রহমানের নামের এক ব্যাক্তির মালিকানাধিন ‘মাহবুব ভিলা’নামের ওই ভবনের নিচ তলা ফ্লাটে ভাড়াটিয়া হিসাবে বস্ববাস করেন রবিউল নামের এক ব্যাক্তি । ইউরো ফার্মা নামের একটি বেসরকারী মেডিসিন কোম্পানীর বগুড়া অফিসের সিনিয়র এরিয়া ম্যানেজার তিনি । স্ত্রী ঝিনুক শিক্ষকতা করেন পালশা এলাকার পল্লী মঙ্গল উচ্চ বিদ্যালয়ে । নিজেদের কণ্যা সন্তান রয়েছে তাদের ।

ওই দম্পতি তাদের কাজের মেয়ে হিসাবে বেশ কিছুদিন পূর্বে শিশু সেলিনাকে নিয়ে এসেছিলেন রংপুরের পীরগঞ্জ থেকে । ওই দম্পতি কথা দিয়ে এসেছিলেন ,নিজেদের সন্তানের মত রাখবেন সেলিনাকে । কিন্তু তারা সে কথা রাখেননি।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, ওই দম্পতি শিশু কাজের মেয়েটিকে প্রায়ই মারধোর করতো এবং তারা কোথাও গেলে তাকে একাই তালা মেরে রেখে যেত । এলাকাবাসী এবং এলাকায় খোজ জানা যায় ঝিনুক ম্যাডাম হিসাবে পরিচিত ওই শিক্ষিকা অতন্ত বদ মেজাজের একজন মহিলা । রংপুরে মেয়ের একটি অনুষ্ঠানে যোগ দেবার জন্য আগের রাতে তারা গিয়েছিলেন সেখানে। যাবার আগে ওই শিশুটিকে তারা বাড়ীতে তালাবদ্ধ ভাবে রেখে যান ।

গতকাল শুক্রবার দুপুরে জুম্মার নামাজের পর শিশুটি চিৎকার চেঁচামেচি করে কাঁদতে থাকে এবং নিচতলা ফ্লাটের বাথরুমের ছোট্র জানালা দিয়ে বেড়িয়ে আসার চেষ্টা করে এবং মানুষের সাহায্য চাইতে থাকে । এক পর্যায়ে বিষয়টি মুসল্লিদের দৃষ্টিগোচর হলে তারা সেখানে গিয়ে ওই বাড়ীতে তালাবদ্ধ অবস্থায় দেখতে পায় ।

পরে স্থানীয় ষ্টেডিয়াম পুলিশ ফাঁড়ীতে বিষটি জানানো হলে দ্রুত পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে পৌছে স্থানীয়দের সহায়তায় তালা ভেঙ্গে শিশুটিকে উদ্ধার করে এবং নিজেদের হেফাজতে নেয়।

উদ্ধারের পর পরই শিশুটি নিজের শরীরে বিভিন্ন স্থানে মারপিটের দাগ দেখিয়ে জানায় তাকে কারনে ওকারনে মারপিট করতো ঝিনুক ম্যাডাম । তাকে বাহিরে আসতে দেয়া হত না । গত দু’দিন আগে আগে তাকে বাড়ীতে তালাবদ্ধ করে রেখে গেছেন ওই দম্পতি ।
এ বিষয়ে বিকালে ফ্লাটের ভাড়াটিয়া রবিউলের মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করে প্রকৃত ঘটনা জানতে চাওয়া হলে তিনি সাংবাদিক পরিচয় পেয়ে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যাক্ত করেন এবং উল্টা পাল্টা কথা বলতে শুরু করেন।

এলাকাবাসীর অভিযোগ , ওই দম্পতি শিশুটিকে কখনোই বাহিরে আসতে দিত না । তারা বলেন বাড়ীর মালিক মাহবুবুর রহমান সব কিছু জানলেও ওই দম্পতিকে কিছুই বলতো না । এদিকে মাহবুবুর রহমান জন সম্মখে বলেন , তিনি ওই ঘটনা জানা জানির পর তাদের বাড়ী ছাড়াও নোটিশ দিয়েছিলেন ৩মাস আগে । তিনি আরো দাবী করেন বিষয়টি তিনি অনেককে জানিয়েছিলেন । কিন্তু ওই দম্পতি তাকেই বাড়ী না ছেড়ে উল্টা দিয়ে হুমকী দিত ।

এ বিষয়ে গতকাল সন্ধ্যায় এ বিষয়ে বগুড়া সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (সার্বিক) মুহাঃ এসএম বদিউজ্জামান এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বিকার করে বলেন , ওই দম্পতি শিশু কাজের মেয়েটিকে তালাবন্ধ করেই রেখে বলে তিনি শুনেছেন ।
গতকাল রাতে ১০টা শেষ খবর পযন্ত পর্যন্ত জানা গেছে , এ ঘটনার সাথে জরিত থাকার অপরাধে গৃহকর্তা রবিউলকে পুলিশ আটক করতে পারলেও ,তারে স্ত্রী ঝিনুক ম্যাডাম পলাতক রয়েছেন । পুলিশ তাকে আটকের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে ।রবিউল এর আদি বাড়ী নিশিন্দারা মন্ডলপাড়া এলাকায়। সে হাসান আলীর ছেলে।

এসংবাদ লেখা পর্যন্ত শিশুটি পুলিশ হেফাজতেই ছিল । এদিকে শেষ খবর পর্যন্ত ঘটনাকে অন্যখাতে প্রবাহিত করতে এবং ঘটনার একটা রফা দফা করতে একটি প্রভাবশালী মহল তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছিল । ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Powered by Dragonballsuper Youtube Download animeshow