সর্বশেষ সংবাদ

খাগড়াছড়িতে বর্নিল আয়োজনে নববর্ষ বরণ


এম দুলাল আহাম্মেদ,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি: “আলো দাও, আলোকিত হবো” মুছে যাক গ্লানি, মুছে যাক ঝরা” নানা স্লোগান, বাহারী পোষাক ঐতিহ্যবাহি সাজ আর বর্নিল আয়োজনে নানা রঙ্গে ঢঙ্গে আর আনন্দ ভরা মনে নানা খেলা দুলার মাধ্যমে খাগড়্ছাড়ি জেলায় বাংলা নববর্ষকে বরণ করে করা হয়েছে।গত কয়’দিন পার্বত্য জেলা ছিল আনন্দ ভরা রঙ্গের মেলা।মনে হয়েছে অন্য সব গুলো উৎসবকে পিছনে ফেলে বৈসাবিন যেন পার্বত্যাঞ্চলে বসবাসরত সকল সম্প্রদায়ের মানুষের কছে একটি প্রীয় এবং সার্বজনিন উৎসব। এ উৎসবকে ঘিরে ব্যক্তি থেকে শুরু করে সকল সরকারী-বেসরকারী প্রতিষ্ঠান নিজ নিজ উদ্যোগে নানা আয়োজনের মাধ্যমে উৎসবটি উদযাপন করেছে।ব্যানার,ফ্যাস্টুন,আনন্দ র‌্যালি,মঙ্গল শোভাযাত্রার মত অনুষ্ঠান গুলো খাগড়াছড়ি পরিনত হয় মহামিলন মেলায়।পাহড়ে ছড়িয়ে পড়ে প্রাণের ছোয়া।নব আনন্দে জাগে পাহাড়ের উপজাতীসহ সকল সম্প্রদায়ের মানুষ।বাঙালির নিজস্ব সংস্কৃতির উৎসব পহেলা বৈশাখ আর পাহাড়ে বসবাসরত উপজাতীদের প্রাণের উৎসব বৈসাবী মিলে পাহাড় জুড়ে উৎসবের আমেজ।রবি ঠাকুরের ‘এসো হে বৈশাখ এসো এসো … সুরের তালে তালে মেতে উঠেছে বাঙ্গালীরা।

রবিবার (১৪এপ্রিল)সকালে খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসনের আয়োজনে বর্ণাঢ্য বৈশাখী শোভাযত্রা বের করা হয়।শোভাযাত্রাটি সরকারী হাই স্কুল মাঠ থেকে শুরু হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে টাউন হল প্রাঙ্গনে বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে উদ্বোধন করেন উপজাতীয় শরনার্থী পুনর্বাসন বিষয়ক টাস্কফোর্স চেয়ারম্যান কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি।উপস্থিত ছিলেন, খাগড়াছড়ি রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল হামিদুল হক,জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী,জেলা প্রশাসক মো: শহিদুল ইসলাম,পুলিশ সুপার মো: আহমার উজ্জামান,খাগড়াছড়ি পৌর মেয়র রফিকুল আলমসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ্র।

সকালে ১০টায় গুইমারা উপজেলা প্রশাসনের উদ্দ্যেগে এক আনন্দ শোভা যাত্রা করা হয়।শোভাযাত্রাটি গুইমারা সরকারি মডেল হাইস্কুল প্রাঙ্গণ থেকে শুরু হয়ে রিজিয়ন মাঠে গিয়ে শেষ হয়।এতে গুইমারা উপজেলা চেয়ারম্যান উশেপ্রু মারমা,গুইমারা থানার অফিসার ইনচার্জ বিদ্যুৎ কুমার বড়–য়া,গুইমারা সদর ইউপি চেয়ারম্যান মেমং মারমা,হাফছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান চাইথোয়াই চৌধুরী, সিন্দুকছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান রেদাক মারমা, গুইমারা কলেজের অধ্যক্ষ নাজিম উদ্দীন, গুইমারা সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুলিশ রঞ্জন পাল,সহকারী শিক্ষক বাবুল হোসেন সহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-প্রভাষকগণ ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীগণ র‌্যালীতে অংশ নেয়।

এদিকে পাহাড়ের সকল সম্প্রদায় নিয়ে বিশাল এক মেলার আয়োজন করে গুইমারা রিজিয়ন।এতে এলাকার সকল সম্প্রদায়ের লোকজন পহেলা বৈশাখের আনন্দ উপভোগ করতে রিজিয়ন মাঠে অংশ নেয়।মাটিরাঙ্গা সেনা জোন কর্তৃক গুইমারা রিজিয়ন মাঠে আয়োজিত মেলার উদ্বোধন করেন,২৪আর্টিলারী ব্রিগেড গুইমারা রিজিয়নের রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল একেএম সাজেদুল ইসলাম এএফ ডব্লিউ পিএসসি.জি।উপস্থিত ছিলেন,মাটিরাঙ্গা জোন অধিনায়ক নওরোজ নিকোশিয়া পিএসসি.জি, সিন্দুকছড়ি জোন অধিনায়ক রুবায়েত মাহমুদ হাসিব পিএসসি.জি, লক্ষিছড়ি জোন অধিনায়ক জান্নাতুল ফেরদৌস পিএসসি.জি,গুইমারা উপজেলা চেয়ারম্যান উশ্যেপ্রু মারমা, মাটিরাঙ্গা উপজেলা চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম, রামগড় উপজেলা চেয়ারম্যান বিশ্ব ত্রিপুরা, মানিকছড়ি উপজেলা চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদীন,লক্ষিছড়ি উপজেলা চেয়ারম্যান বাবুল চৌধুরী সহ স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানগণ, ইউপি সদস্যগণ এবং রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ।এছাড়াও সামরিক পদস্থ কর্মকর্তা,জনপ্রতিনিধি, রাজনীতিবিদ, সাংবাদিক ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরাসহ বৈশাখের রঙে রঙিন মানুষের পদভারে ভরে মুখরিত হয়ে উঠে মেলার মাঠ।মেলায় মারমা সম্প্রদায়ের জলকেলি (পানি খেলা) উৎসবসহ নানা ধরনের খেলার আয়োজন করা হয়।এছাড়া জেলার অন্যান্য উপজেলায় নানা আয়োজনের মাধ্যমে নববর্ষকে রবণ করা হয়েছে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Powered by Dragonballsuper Youtube Download animeshow