সর্বশেষ সংবাদ

ঝিনাইদহ রিপোটার্স ইউনিটি ও এনপিএস’র জাতীয় শোক দিবস পালন(ঝিনাইদহের আরও ৩টি সংবাদ)

জাহিদুর রহমান তারিক, ঝিনাইদহ থেকেঃ ঝিনাইদহে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালিত হচ্ছে। জেলা প্রশাসনের আয়োজনে বুধবার সকালে শহরের পুরাতন ডিসি কোর্ট চত্বর থেকে শোক র‌্যালী বের করা হয়। র‌্যালীটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক ঘুরে প্রেরণা একাত্তর চত্বরে গিয়ে শেষ হয়। সেখানে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অপর্ন করা হয়। পরে পুরাতন ডিসি কোর্ট চত্বরে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। জেলা প্রশাসক সরোজ কুমার নাথ এর সভাপতিত্বে এসময় বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌরসভার মেয়র আলহাজ সাইদুল করিম মিন্টু, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) খোদেজা খাতুন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) বাকাহীদ হোসেন, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আছাদুজ্জামান, স্থানীয় সরকারের উপ-পরিচালক সাইফুর রহমান খান, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক কমান্ডার মকবুল হোসেন। অপরদিকে ঝিনাইদহ প্রেসক্লাবে দোয়া ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। এতে জেলা প্রশাসক সরোজ কুমার নাথ, পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌরসভার মেয়র সাইদুল করিম মিন্টুসহ প্রেসক্লাবের নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন। এছাড়াও জেলা কৃষক লীগের উজ্বল, সোম, আশরাফুল, পোড়াহাটি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও সদর থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম হিরন, ঘোড়শাল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পারভেজ মাসুদ লিল্টন, সুরাট ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কবির হোসেন জোয়ার্দ্দার কেবি, পদ্মাকর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সৈয়দ নিজামুল গনি লিটু, নলডাঙ্গা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কবির হোসেনর আয়োজনে আলোচনা সভা, দোয়া মাহফিল ও গনভোজের আয়োজন করা হয়। এদিকে ঝিনাইদহ জেলা রিপেটার্স ইউনিটি ও ন্যাশনাল প্রেস সোসাইটির (এনপিএস) এর সভাপতি এমএ সামাদ, সাধারন সম্পাদক জাহিদুর রহমান তারিক ও এনপিএস’র সাধারন সম্পাদক রাজিব সহ উক্ত সংগঠনদ্বয়ের মধ্যে কামাল, ছালাম, হাবিব, হাকিম, জাহিদ, সহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন। ঝিনাইদহ জেলা রিপেটার্স ইউনিটি ও ন্যাশনাল প্রেস সোসাইটির (এনপিএস) এর শোক সভা শেষে একটি মটর সাইকেল র‌্যালি বের হয়ে পুরা ঝিনাইদহ শহর প্রদক্ষিন করে। সে সময় ঝিনাইদহের তেতুলবাড়িয়ার চার ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের আঞ্চলীক কমিটির সভাপতি সাজেদুর রহমান সর্দ্দার ও সাধারন সম্পাদক আক্কাস আলী সহফজলুর রহমান, গিয়াস উদ্দিন, শাহিন, হারুন মেম্বর রিপেটার্স ইউনিটি ও ন্যাশনাল প্রেস সোসাইটি (এনপিএস) কে অভিনন্দন জানান।

হরিণাকুন্ডুতে চাঁদাবাজী করতে গিয়ে দুই ভুয়া সাংবাদিক গ্রেফতার

জাহিদুর রহমান তারিক, ঝিনাইদহ থেকেঃ ঝিনাইদহের শৈলকুপার ভাটই বাজারে স্বামী-স্ত্রী পরিচয় দিয়ে বসবাস করা কথিক সাংবাদিক দম্পতি লিটন মিয়া ও আনোয়ারা পারভিন হ্যাপী এবার বিস্তর গ্যাড়াকলে পড়েছে ! ভারতের কলকাতা ও আকাশ টেলিভিশনের সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে চাঁদাবাজী করতে গিয়ে এই দুই ভুয়া সাংবাদিক এবার জনতার হাতে আটক হয়েছে। পরে তাদের ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডু থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়। আটককৃতরা হলেন, শৈলকুপা উপজেলার গোলকনগর গ্রামের জিয়ারত ডাক্তারের ছেলে লিটন মিয়া ও রাজবাড়ি জেলার বালিয়াকান্দি উপজেলার নড়িয়া গ্রামের ইসলাম মোল্লার মেয়ে আনোয়ারা পারভিন হ্যাপী। ১৬ই আগষ্ট বুধবার দুপুরে ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডু উপজেলার দুর্লভপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এই চাঁদাবাজীর ঘটনা ঘটে। হরিণাকুন্ডু থানার ওসি আসাদুজ্জামান মুন্সি জানান, বুধবার লিটন মিয়া ও আনোয়ারা পারভিন হ্যাপী সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে দুর্লভপুর সরকারী প্রাইমারি স্কুলে প্রধান শিক্ষকের নিকটে চাঁদাবাজী করতে যায়। গত ২৬ জুলাই এই দুইজন স্লিপ প্রকল্পের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ তুলে প্রধান শিক্ষকের কাছ থেকে দুই হাজার টাকাও হাতিয়ে নেয়। আজ আবার তারা দুইজন স্লিপ প্রকল্পের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ তুলে এসেছিল চাঁদাবাজী করতে। শিক্ষকদের সন্দেহ হলে তারা ইউনিয়নের চেয়ারম্যানকে জানায়ে ভুয়া সাংবাদিক লিটন মিয়া ও আনোয়ারা পারভিন হ্যাপীকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেন। দুর্লভপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এনামুল হক জানিয়েছেন, আমরা খোঁজ নিয়ে জানতে পারি তারা সাংবাদিক নয়, তারা মুলত কলকাতা ও আকাশ টিভির পরিচয় দিয়ে চাঁদাবাজী করতে এসেছিল। তাই তাদের আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছি। আটক আনোয়ারা পারভিন হ্যাপী পুলিশেকে জানিয়েছে, তার স্বামীর বাড়ি চুয়াডাঙ্গা জেলার আলমডাঙ্গার বড় বোয়ালিয়া গ্রামে। স্বামীর সাথে তার ছাড়াছাড়ি হয়ে গেছে। এ কারণে শৈলকুপার গোলকনগর গ্রামের লিটন মিয়ার সাথে ভাটই বাজারে স্বামী-স্ত্রী পরিচয় দিয়ে বসবাস করেন এবং বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে গিয়ে চাঁদাবাজী করেন। এ ব্যাপারে বুধবার দুপুরে হরণিাকুন্ডু থানায় ভুয়া সাংবাদিক লিটন ও হ্যাপীর নামে দুর্লভপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এনামুল হক বাদী হয়ে মামলা করেন। ভুয়া সাংবাদিক লিটন মিয়া ইতিপুর্বে চাঁদাবাজী করতে গিয়ে হরিনাকুন্ডুতে ও কুষ্টিয়ায় পুলিশের হাতে গেফতার হয়েছিল বলে অভিযোগ রয়েছে। উল্লেখ্য, ইতিপুর্বে হরিণাকুন্ডু উপজেলার চরপাড়া বাজারে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে চাঁদাবাজী করতে গিয়ে কোটচাঁদপুর উপজেলা চেয়ারম্যান তাজুল ইসলামের ছেলে জিয়াউল হক, হরিণাকুন্ডুর হরিয়ারঘাট গ্রামের আমিরুল ইসলামের ছেলে শাওন হাসান আবীর ও কুষ্টিয়ার ইবি থানার বিষ্ণুদিয়া গ্রামের রবিউল ইসলামের ছেলে ওয়ালীউল্লাহ জনতার হাতে আটক হয়ে শ্রীঘরে ঢোকেন।

 

ঝিনাইদহে ভ্রাম্যমাণ আদালতে নদীতে বাঁধ অপসারণ

স্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইদহঃ ঝিনাইদহ সদর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের নদীতে অবৈধভাবে দেওয়া বাঁধ অপসারণ করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। গত ১ সপ্তাহে কয়েকদফা অভিযান চালিয়ে সদর উপজেলার কালিচরনপুর, দোগাছি, ঘোড়শাল, ফুরসন্দি, গান্না ইউনিয়নের নবগঙ্গা, ফটকি, রাজারামের খাল, কুঠি দুর্গাপুর ও কালুহাটি খালসহ বিভিন্ন নদী ও খালের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করেন সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাম্মী ইসলাম। এসময় নদী ও খালের মাঝে অবৈধ বাঁধ দখলদারদের বাঁশ খুটি পুড়িয়ে গুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। এতে করে এলাকায় হাজার হাজার একর রোপা আমনের ফসলি জমি পানিতে তলিয়ে যাওয়া থেকে রক্ষা পেল। এলাকায় ফিরে এসেছে স্বস্থি। বর্ষার শুরুতেই এক শ্রেনির ভুমি দস্যুরা নিজের পেশি শক্তির জোরে এসব সরকারি জায়গা অবৈধ ভাবে দখল করে মৎস্য শিকার করতো। বাধের কারনে সৃষ্টি হয়েছে জলাবদ্ধতা। ঝিনাইদহ সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা শাম্মী ইসলাম জানান, বর্ষার পুরা মৌসুমে অবৈধ দখলদারদের বিরুদ্ধে এ অভিযান অব্যাহত থাকবে। অভিযানে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও পুলিশ সদস্য ও মৎস্য বিভাগের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

ঝিনাইদহ লাউদিয়া গ্রামের এক পরিবারের তিন শিশুকে যৌন নিপীড়ন

জাহিদুর রহমান তারিক, ঝিনাইদহ থেকেঃ ঝিনাইদহ সদর উপজেলার লাউদিয়া গ্রামে তিন শিশুকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ঝিনাইদহ সদর থানায় একটি অভিযোগ করেছেন পাপিয়া খাতুন নামে এক নারী। এদিকে থানায় অভিযোগ দেওয়ার পর থেকেই লম্পট গাঁঢাকা দিয়ে আছে। অভিযোগে পাপিয়া খাতুন উল্লেখ করেছেন লাউদিয়া গ্রামের কলিম উদ্দীনের লম্পট ছেলে আলাউদ্দীন (৫২) তার দুই মেয়ে ও দেবরের এক শিশু কন্যাকে মিষ্টি খেতে দিয়ে শরীরের স্পর্শকাতর স্থানে হাত দেয়। এই কাজ সে দীর্ঘদিন ধরেই করে আসছে। এর মধ্যে বাদীর ১১ বছর বয়সী এক শিশুকে গত ৯ জুলাই ধর্ষনের চেষ্টা করে। ওই সময় শিশুটিকে চিকিৎসকের কাছ থেকে চিকিৎসাও করানো হয়। কিন্তু তাকে যে ধর্ষন করেছে এ কথা অভিভাবকদের মাথায় আসেনি, বলে জানান নির্যাতিত শিশুর পিতা। পরবর্তীতে লম্পট আলাউদ্দীন একের পর এক তিন শিশুকে যৌন নিপীড়ন করতে থাকলে তারা রোববার রাতে ঝিনাইদহ সদর থানায় লিখিত অভিযোগ করেন। বাদীর অভিযোগটি তদন্ত করতে এসআই ইউনুস আলীকে ওসি নির্দেশ দেন। বাদীনির অভিযোগ, কিছুদিন আগে তার দেবরের ৫ বছরের শিশু কন্যাটি বাড়িতে এসে কান্নাকাটি করতে থাকলে তার কাছ থেকেই আমরা ঘটনাটি জানতে পারি। লাউদিয়া গ্রামের শুকুর আলী, হাসিনা বেগম ও শহিদুল ইসলাম অভিযোগ করেন, আলাউদ্দীনের মতো একজন লম্পট শিশুদের এ ভাবে দিনের পর দিন মিষ্টি খাওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে যে যৌন নিপীড়ন করবে তা আমাদের জানা ছিল না। গ্রামবাসির ঘৃনা আর লজ্জায় মাথা হেট হয়ে যাচ্ছে। তার যৌন নিপীড়নের সুষ্ঠ বিচার দাবী করেন। বিষয়টি নিয়ে ঝিনাইদহ সদর থানার এসআই ইউনুস আলী জানান, আমরা এ ধরণের একটি অভিযোগ পেয়েছি। অভিযুক্তকে ধরার চেষ্টা চালাচ্ছি। তবে সে পালিয়ে আছে। তিনি আশা করে বলেন দ্রুতই তাকে গ্রেফতার করা হবে।

ঝিনাইদহ বিআরটিএ পদে পদে হয়রানী ও জনদুর্ভোগ

জাহিদুর রহমান তারিক, ঝিনাইদহ থেকেঃ নিরাপদ সড়কের দাবীতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের পর টনক নড়েছে সব পরিবহন মালিকদের। সেই সুবাদে তারা গাড়ির রেজিষ্ট্রেশন, ড্রাইভিং লাইসেন্স, রুট পারমিট নিতে ঝিনাইদহ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ) তে ভীড় করছেন। তবে তারা কাংক্ষিত সেবা পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ উঠেছে। পদে পদে হয়রানী ও জনদুর্ভোগে মানুষ অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। বিআরটিএ অফিস পরিবহন মালিকদের জনদুর্ভোগ লাঘবে সকাল ৯ টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত খোলা থাকলেও ব্যাংক খোলা রাখা হচ্ছে সকাল থেকে বেলা দুইটা পর্যন্ত। ফলে টাকা জমা দিতে না পেরে বেশির ভাগ মানুষ ফিরে যাচ্ছেন। অন্যদিকে ঝিনাইদহ বিআরটিতে রয়েছে লোকবল সংকট। নানাবিধ কারণে পরিবহন মালিকরা হয়রানীর শিবার হচ্ছেন। সাইফুল ইসলাম একজন সরকারী কর্মকর্তা। তিনি শিক্ষানবিশ ড্রাইভিং লাইসেন্স করতে আসেন। এসে দেখেন ব্যাংকে উপচে পড়া ভীড়। ভোর সকাল থেকে মানুষের ধীর্ঘ লাইন। দুইটার পর আর তার আর টাকা জমা নেন নি। শেখ মুজিবর রহমান রিপন থাকেন ঢাকায়। তিনি এসেছিলেন তার হারানো ড্রাইভিং লাইসেন্স তুলতে। ঝিনাইদহ ডিসি অফিসে স্থাপিত এনআরবিসি ব্যাংকের কালেকশন বুথে টাকা জমা দিতে না পেরে তিনি একই ব্যাংকের হাটগোপালপুর শাখায় যান টাকা জমা দিতে। রাত জেগে ঢাকা থেকে এসে সন্ধ্যার দিকে পান তার কাগজ। ততক্ষনে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। আজাদ রহমান হরিণাকুন্ডু থেকে এসেছিলেন শিক্ষানবিশ ড্রাইভিং লাইসেন্স করতে। তিনিও টাকা জমা দিতে না পেরে হয়রানীর শিকার হন। টাকা জমা দেওয়ার ক্ষেত্রে একাধিক ব্যাংকের সাথে বিআরটিএ’র চুক্তি না থাকায় মানুষ হয়রানীর শিকার হচ্ছেন বলে বিআরটিএ কর্মকর্তারা জানান। তবে এ সমস্যা আচিরেই কেটে যাবে বলে জানান, ঝিনাইদহ বিআরটিএর সহকারী পরিচালক বিলাস সরকার। তিনি জানান, তার অফিসে কোন হয়রানীর সুযোগ নেই। হয়তো টাকা জমা দিতে না পারায় ২/১ দিন দেরি হচ্ছে। লোকবল কম হওয়া সত্বেও গ্রাহকরা আসার সাথে সাথেই কাজ করে দেওয়া হচ্ছে। তিনি বলেন, টাকা জমা দেওয়ার এই সমস্যা স্থানীয় ভাবে নিরসনের কোন পথ থাকলে সেটা অবশ্যই আমরা করতাম। আমরা হেড অফিসকে সমস্যা নিরসনের জন্য বলেছি। গ্রাহকদের অভিযোগ গাড়ির রেজিষ্ট্রেশন, ড্রাইভিং লাইসেন্স, রুট পারমিট করতে দালালরা অতিরিক্ত টাকা চেয়ে বসছে। তারা সরাসরি অফিসারের সাথে কথা বলতে পারছেন না। শিমুল নামে এক ট্রাক মালিক জানান, তার রুট পারমিট করতে দুই হাজার টাকা অতিরিক্ত দাবী করা হয়। এ ভাবে বহু মানুষের নানাবিধ অভিযোগের স্তুপ জমা পড়ছে প্রতিদিন। কিন্তু কোন প্রতিকার মিলছে না। গ্রাহকরা যাতে একাধিক ব্যাংকে টাকা জমা দিতে পারেন সেই দাবী করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Powered by Dragonballsuper Youtube Download animeshow