সর্বশেষ সংবাদ

বিশ্বব্যাপী দাড়ির জনপ্রিয়তা বৃদ্ধির কারণ নিয়ে গবেষণা

ফকীর শাহ < এশিয়ানবার্তা ডেস্ক> রবীন্দ্রনাথের দাড়ি আর নজরুলের চুল নিয়ে আমরা যতই ঠাট্টামশকরা করি না কেন,দাড়িও একটা বিষ্ময়কর গবেষণার বিষয়। দাড়িও যে একটা গবেষণার বিষয় হতে পারে, তা এতোদিন জানা না থাকলেও এবার সেই দাড়ি নিয়েই গবেষণা করার ঘোষণা দিয়েছেন ব্রিটেনের এক বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ।

বিশ্বব্যাপী পুরুষদের মধ্যে দাড়ির জনপ্রিয়তা নাকি এতটাই বেড়ে গেছে যে, ব্রিটেনের বিশ্ববিদ্যালয়ের সেই অধ্যাপক বলছেন, তিনি আগামি তিন বছর ধরে এই দাড়ির ইতিহাস নিয়ে একটি গবেষণা চালাবেন।

আসলেও দাড়ির জনপ্রিয়তা বিষ্ময়কর ভাবেই বেড়ে যাচ্ছে। দাড়ি রাখা মুসলমানদের গুরুত্বপূর্ণ ধর্মীয় বিষয় হলেও পৃথিবীর বিভিন্ন দর্শের পুরুষদের মধ্যে দাড়ি রাখার প্রবণতা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। পৃথিবীর বিখ্যাত খেলোয়াড়,অভিনেতা থেকে শুরু করে সেলিব্রেটিরাও এখন দাড়ি রাখছেন। দাড়ি রাখার জন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও ব্যাপক প্রচারণা লক্ষ্য করা যায়। বিশ্বজুড়ে পুরুষদের এই দাড়ি রাখার প্রবণতাকেী কারনে বাড়ছে সেটা অবশ্যই গবেষণার দাবি রাখে।

এক্সেটার বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক এ্যালান ওয়াইদির এই গবেষণার বিষয়বস্তু হবে ‘দাড়ি, এর সাথে পুরুষত্ব এবং স্বাস্থ্যের সম্পর্ক এবং দাড়ি কামানোর প্রযুক্তির বিবর্তন’।

গত বছর অস্ট্রেলিয়ায় চালানো এক গবেষণায় বলা হয়েছিল, ‘দাড়িওয়ালা মুখ’ বা ‘পরিষ্কার-কামানো মুখ’ – যেটা যখন যত দুর্লভ হয় – ততই তার জনপ্রিয়তা বেশি হয়।

“যখন পুরুষদের মধ্যে দাড়ি রাখার প্রচলন শীর্ষে উঠে যায়, ঠিক তখনই এর জনপ্রিয়তা কমতে শুরু করে – কারণ মেয়েদের চোখে তখন দাড়ি- না-রাখা লোকদেরকেই বেশি আকর্ষণীয় মনে হতে থাকে” – বলেছিলেন জরিপ পরিচালনাকারী সিডনির বিজ্ঞানীরা।

 

জরিপে বলা হয়, সে হিসেবে ২০১৪ সালের মধ্যেই দাড়ির জনপ্রিয়তার শীর্ষবিন্দু পার হয়ে গেছে।

কিন্তু তার পরও দাড়ির জনপ্রিয়তা এখনো অব্যাহতই আছে। সে জন্যই প্রফেসর ওয়াইদি এই গবেষণায় অনুপ্রাণিত হয়েছেন।

ড. ওয়াইদি বলেন, বহু শতাব্দী ধরেই অনেকের ধারণা ছিল দাড়িওয়ালা লোকেরা নোংরা বা এটা অস্বাস্থ্যকর অভ্যাস। এতে বোঝা যায়, দাড়ি নিয়ে সবসময়ই মানুষের আগ্রহ ছিল এবং দাড়ির স্টাইল দিয়ে অনেক সময়ই একেকটা যুগকে চিহ্নিত করা সম্ভব।

বলা হচ্ছে, ১৭০০ থেকে ১৯১৮ সাল পর্যন্ত দাড়ি রাখার অভ্যাস কিভাবে বিবর্তিত হয়েছে – এই গবেষণায় সেটাই দেখা হবে।

এই সময়কালের দাড়ি নিয়ে গবেষণা এটিই প্রথম।

ওয়েলকাম ট্রাস্ট নামের একটি প্রতিষ্ঠান এই জরিপের অর্থায়ন করছে।

তথ্যসুত্র : বিবিসি বাংলা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Powered by Dragonballsuper Youtube Download animeshow