সর্বশেষ সংবাদ

তীক্ষ্ণ জোড়া কাটা বিশিষ্ট গাছ

আমিনুল ইসলাম হিরো।।
করমচা বা করঞ্জা ঝোপ জাতীয় এবং তীক্ষ্ণ জোড়া কাটা বিশিষ্ট গাছ। এর গাছ মাঝে মাঝে বেড়ার কাজেও ব্যবহৃত হয়। করমচা গাছের উচ্চতা ১০ ফুটের মতো হয়। ফল প্রায় ৭৫ ইঞ্চি দীর্ঘ হয় এবং তাতে ছোট ছোট অনেক বীজ থাকে। বাগানের শোভা বাড়াতে করমচা গাছের জুড়ি নেই। করমচা খুব একটা জনপ্রিয় ফল না হলেও বেশ উপকারী। ফলগুলো দেখতে অনেকটা চেরাষ ফলের মতো। বাজারে এর বেশ চাহিদা রয়েছে। এ ফল থেকে সুস্বাদু চাটনি তৈরি হয়।
করমচার আদি নিবাস হচ্ছে ভারত, দক্ষিণ আফ্রিকা ও মিশর। তবে বাংলাদেশেও অনেকদিন থেকে করমচা হচ্ছে। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ যেমন অস্ট্রেলিয়া, আফ্রিকা, চীন, ভারত, মায়ানমার, বাংলাদেশ, শ্রীলংকায় প্রচুর করমচা হতে দেখা যায়।
করমচা গাছের বৃদ্ধি বেশ ধীর। গাঢ় সবুজ গোলাকৃতি চকচকে পাতা লম্বা প্রায় ২.৫-৫ সে.মি. চওড়া ২.৫-৩ সে.মি.। বড় সাদা বা ফিকে গোলাপি রঙের সুমিষ্ট বা গন্ধযুক্ত ফুল দেখতে অনেকটা বুন্দ ফুলের মতো। ফেব্রুয়ারি মাসে গাছে ফুল আসে এবং বর্ষায় ফল পাকে। ফল দেখতে বেশ আকর্ষণীয় অনেকটা বরই আকৃতির।
প্রচুর ভিটামিন রয়েছে করমচায়। শুকনো ফলে গুণাগুণ বিচার করে পাওয়া যায় জলীয় রস ১৮.২%, প্রোটিন ২.৩০%, স্নেহ ৯.৬% খনিজ ২.৮, শর্করা ৬৭.১%। প্রতি ১০০ গ্রাম তাজা ফলে রয়েছে ২০০.৯৪ মি. গ্রা. ভিটামিন সি।
সাধারণতঃ দু’ধরনের করমচা দিয়ে জ্যাম, জেলি, পুডিং খুব সুস্বাদু হয়। করমচার ইংরেজি নাম-Karaunda ও বৈজ্ঞানিক নামে Carissa Carandas Li.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Powered by Dragonballsuper Youtube Download animeshow