সর্বশেষ সংবাদ

পর্ণোসাইট বন্ধের ম্যাজিক্যাল ধাঁধাঁ এবং ২০ কোটি বাঙালীর তেত্রিশ কোটি গাধা

ফকীর শাহ < এশিয়ানবার্তা ডেস্ক> ভয়ংকর দাবানালের মত ধেয়ে আসা পর্ণোসাইটগুলো গ্রাস করে ফেলেছে বাংলাদেশকে। অবশেষে হাইকোর্টের নির্দেশে আইসিটি মন্ত্রনালয় পর্ণোসাইট বন্ধের কাজ করছে। আমরা কেউ কোনদিন প্রশ্ন তুলিনি যে,পর্ণোসাইটগুলো বন্ধ করার জন্য হাইকোর্টকে নির্দেশ দিতে হলো কেনো ?

মাননীয় আইসিটি মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার কিছুদিন আগে তার ভেরিফায়েড ফেসবুক আইডির ট্যাটাসে  লিখেছেন, ‘২৪৪টি পর্নো সাইট বন্ধ করেছি। অভিযান চলছে। চলবে।’ এর আগেও বহুবার পর্নো ওয়েবসাইট ব্লক করার ব্যাপারে সর্বোচ্চ কঠোর অবস্থানের কথা জানিয়ে আসছে সরকার ।

সাবেক ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিমকেও এ ব্যাপারে কঠোর অবস্থানে থাকতে দেখা গেছে। কয়েক দফায় পর্নো ওয়েবসাইট ব্লক-এর বিষয়ে কার্যকর অবস্থান নেন তিনি। কিন্তু কাজের কাজ তেমন কিছু হয়নি।

আ্ইসিটি মন্ত্রণালয় কেনো এতোদিন হাজার হাজার পর্ণোসাইট বন্ধ করেনি ? তারা হাইকোর্টের নির্দেশের অপেক্ষায় থেকে এতোদিন কী করেছে সেই প্রশ্ন না তুললেও একটা প্রশ্ন করতেই পারেন যে, বিলিয়ন ডলারের জায়ান্ট পর্ণো ইন্ডাস্ট্রিজ কী এমনি এমনি ব্যবসা করে যায় বাংলাদেশে ?

যাই হোক,সেই রহস্য না হয় চাপাই থাকুক। হাইকোর্টের নির্দেশ পেয়ে বিটিআরসি নাকি কয়েক হাজার পর্ণোসাইট বন্ধও করেছে। একথা শুনলে হাসি পায় আবার না শুনলেও কান্না পায়। কারণ পর্ণোসাইট বন্ধ করার পরও কিলবিল করছে প্রিপেইড পর্ণোসাইট। তাহলে বিটিআরসি এতোদিন ধরে কী বন্ধ করলো ?

তবে ফ্রি পর্ণোসাইটের অনেকগুলোই বন্ধ হয়েছে এটা ঠিক। আর ডিজিটাল জাদুকরের আসল যাদু তো এখানেই। আমরাও হাত তালি দেওয়া শুরু করেছি। হাততালির ফাঁকে যেটা হচ্ছে সেটা হলো প্রিপেইড পর্ণোসাইটগুলোর ব্যবসা রমরমা হয়ে উঠেছে।

ফ্রি পর্ণোসাইটের কারণে বিলিয়ন ডলারের প্রিপেইড জায়ান্ট পর্ণোসাইটগুলোর ব্যবসা লাটে ওঠার অবস্থা হয়ে যাচ্ছিল। এইসব বিলিয়ন ডলারের প্রিপেইড জায়ান্ট পর্ণোসাইটগুলোর ব্যবসায় যদি মার খেয়ে যায়, তাহলে তো পর্ণো ইন্ডস্ট্রি গুলো হুমকীর মুখে পড়বে। তাহলে বিলিয়ন ডলারের পর্ণো ইন্ডস্ট্রি গুলো চালু রাখার উপায় কী ?

উপায় হচ্ছে ফ্রি পর্ণোসাইটগুলো বন্ধ করে দেওয়া। বাংলাদেশে তাই হচ্ছে। ফ্রি পর্ণোসাইটগুলো বন্ধ করে দেওয়ার ফলে রাতারাতি প্রিপেইড জায়ান্ট পর্ণোসাইটগুলোর ব্যবসা রমরমা হয়ে উঠেছে।

পর্ণোসাইট বন্ধের আরেকটি বড় রহস্য হচ্ছে ইউটিউবের বিলিয়ন ডলারের পর্ণোব্যবসার নতুন বাজার সৃষ্টি করা । কারণ ইউটিউব এখন সবচেয়ে বড় পর্ণোইন্ডাস্ট্রিজকে ব্যাকাপ দিচ্ছে। ছোটখাট পর্ণোসাইটগুলো বন্ধ হয়ে গেলে ইউটিউব বেজড পর্ণোইন্ডাস্ট্রিজ ফুলে ফেঁপে উঠতে বেশি সময় লাগবে না। সিগারেট যেমন সকল নেশার হাতেখড়ি,তেমনি ইউটিউব হচ্ছে সকল পর্ণোগ্রাফির প্রবেশদ্বার। অথচ ইউটিউবে ছয়লাব হয়ে যাওয়া পর্ণোচ্যানেল বন্ধের কথা কেউ বলেন না।

কেন ?

এখন বুঝলেন তো ? পর্ণোসাইট বন্ধ করার আসল ম্যাজিক কোথায় ?

আমরা কতটাই সহজ সরল যে হাত তালি দিতে একটুও দেরি করি না। সেই ছোটবেলায় স্কুল ফাঁকি দিয়ে ম্যাজিশিয়ানদের পিছে পিছে ঘুরঘুর করার বয়স থেকেই আমাদের এই অযথা হাততালি দেওয়ার তালিম নেওয়া হয়ে যায় ।  জাদুকর ডুগডুগি বাজিয়ে লোকসমাগম করার পর যখন চিল্লায়ে বলতে থাকেন, উঠাও বাচ্চা লাগাও তালি।   জোরসে তালি।  মারসে তালি।   তখনকার সেই তালি ফুটানোর অভ্যাসটা আমরা বড় হয়েও ভুলতে পারি না।   তাই মন্ত্রী এমপিদের ম্যাজিক দেখেও আমরা জোরসে তালি ফুটাই।   তাদের বক্তব্য শুনে তালি ফুটাই।  কর্মকান্ড দেখে বাহবা দেই।

আগে বিশ্বাস করতাম,তালি না ফুটালে জাদুকরের জাদু কাজ করে না।

এখন বিশ্বাস করি,পাবলিকে তালি না ফুটালে মন্ত্রী এমপিদের জজবা তৈরি হয় না।  মজমা জমে না।

তাই আমরা তালি দিই।   আগে জাদুকর চিৎকার করে ধমক দিয়ে তালি দেওয়ার প্রাকটিস করাতেন।  ভয় দেখিয়ে বলতেন, তালি না ফুটালে সকালে ঘুম থেকে উঠে দেখবা তোমার হাত উধাও হয়ে গেছে।   সেই ভয়ে আমরা গায়ের জোরে তালি ফুটাতাম।   আর মন্ত্রজোরে জাদুকর একের পর এক জাদু দেখাতেন।

ছোট বেলাকার সেই অভ্যাসটা থেকে যাওয়ায় এখন আর সেটা প্রাকটিস করতে হয় না।  এখন আর ধমক দিয়ে তালি ফুটানোর কথা বলতে হয় না।

এখন আমরা এমনি এমনি হাততালি দেই।

সে কারনেই হয়তো আমরা ধূর্ত মানুষদের সহজেই মহান বানিয়ে ফেলি।  তার তলাটা হাতিয়ে দেখি না।

সম্প্রতি বাংলাদেশকে গ্রাস করে ফেলা পর্ণোসাইট বন্ধ নিয়ে তেমনি এক মশকরা দেখে জোরসে হাত তালি দেওয়ার ইচ্ছা হচ্ছে।  আরো যে হাজার হাজার পর্ণোসাইট কিলবিল করছে সে কথা কেউ বলি না। পর্ণোসাইট বন্ধের এই ভাঁড়ামীর মধ্যেও যে হাজার কোটি টাকার বিজনেস আছে সেটা খেয়াল করি না । যেগুলো ফ্রি পর্ণোসাইট, শুধু সেগুলো বন্ধ করার ফলে প্রি-পেইড পর্ণোসাইট গুলো রাতারাতি বিলিয়ন ডলার ইনকাম করতে শুরু করেছে।

যারা ফ্রি পর্ণোসাইট গুলো বন্ধ করে প্রিপেইডগুলো খোলা রাখছেন,তাদেরে এ্যাকাউন্ট ফুলে তালগাছ হতে কয়দিন লাগবে ?

ইউটিউবে শাড়ি সমুদ্র,শাড়ি সুন্দরী, শাড়ি লাভার টাইপের হাজার হাজার পর্ণোচ্যানেলগুলো টেরা গিগা পর্ণো ফুটেজ ছড়িয়ে দিচ্ছে, সেগুলোর কথা না বলে শুধু শুধু দুই পয়সার সানাইয়ের দোতলা দেখে কী লাভ হবে বলুন ?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Powered by Dragonballsuper Youtube Download animeshow