সর্বশেষ সংবাদ

বগুড়ার শেরপুরে স্কুল ছাত্র মিশু হত্যায় ৩ জনের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা


স্টাফ রিপোর্টার: বগুড়ার শেরপুর উপজেলার মির্জাপুর ইউনিয়নের মাকড়কোলা গ্রামের মিজানুর রহমানের ছেলে স্কুল ছাত্র মিশু আমম্মেদ ১৫, কে স্প্রাইটের নামে পয়জন খাইয়ে হত্যা মামলায় ৩ জনের বিরুদ্ধে বগুড়ার আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছে। এই মামলায় আসামিরা হলেন, ইমরান আকন্দ ২১, পিতা আব্দুল মান্নান, আতিকুর রহমান ২০, পিতা আব্দুর রাজ্জাক, তৈয়ব আলী ৪৮, পিতা মৃত রইচ প্রাং, সর্ব সাং মাকড়কোলা শেরপুর বগুড়া। বাংলাদেশ দন্ডবিধির ৩০২/ ৩৪ ধারায় মামলা নম্বর ৯০২৩/২০১৮ মোতাবেক গত ১৫ মে ২০১৮ বগুড়ার অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেড আদালতে মামলাটি দাখিল করা হয়েছে। এই মামলার পরবর্তী দিন ধার্য হয়েছে আগামী ১১,০৬,২০১৮ তারিখে।নিহতের পিতা মিজানুর রহমান এই মামলায় বাদি হয়ে মামলাটি পরিচালনা করছেন এ্যড: মো: আব্দুর রাজ্জাক,

মামলার বিবরনে প্রকাশ, গত ০৪-০৫-২০১৮ তারিখে রাত আনুমানিক ১০ টায় নিহত মিশুকে উপরক্ত আসামিরা স্প্রাইট খাওয়ার কথা বলে বাড়ির বাহিরে নিয়ে যায়। পরে তাকে স্প্রাইটটি খাওয়ান হয়। খাবার পরে মিশু অশুস্থ হয়েপড়ে এবং ব্যপক বমি করতে থাকে। পরের দিন ৫মে মিশুকে শেরপুর স্বাস্থ কমপ্লেক্্র এ ভর্তি করা হলে সেখানে অবস্থার বেগতিক হয়। কর্তব্যরত ডাক্তারদের পরামর্শে মিশুকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল (শজিমেক) এ ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসারত অবস্থায় গত ৬মে মারা যায় মিশু।

আর এই সাথে নিভে যায় মিশুর পড়া লেখার জীবন প্রদীপ। মিশুর বাবা মিজানুর রহমান ঢাকায় কর্মরত থাকা অবস্থায় শিশু ঢাকার গাজীপুর কাশিমপুর এলাকার শেরেবাংলা আইডিয়াল স্কুল এন্ড কলেজে ৯ম শ্রেনীতে পড়াশোনা করতেন। স্কুলের ছুটির ফাকে মিশু বেড়াতে এসেছিল গ্রামের বাড়ীতে। আর এই আসাটাইযে ওর জীবনের শেষ আসা হবে মিশু তা যানতেন্না।

মিশুর বাবা মিজানুন রহমান জানান, আমার ছেলের হত্যাকারীদের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করেছি। আমি আইনের প্রতি শ্রদ্ধা রাখি, তাই আমি আসা করছি আমার ছেলের হত্যাকারীদের বিচারে সর্বচ্চ শাস্তি ফাসিতে ঝুলিয়ে মুত্যদন্ডের দাবি করছি।

এদিকে সজিমেক হাসপাতালে নিহত শিশুকে ময়না তদন্তে ফরেনসিক বিভাগের রিপোর্টে বলা হয়েছে মিশুকে স্প্রাইটের মধ্যে এলকাহল পয়জন মিসিয়ে খাওয়ান হয়েছিল।

অপর দিকে গত ৬মে বগুড়া সদর থানায় ইউডি মামলা নম্বর ৩৮৭, এই মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই জাহাঙ্গীর আলমের সাক্ষরিত সুরতহাল প্রতিবেদনে উল্যেখ করা হয়েছে, মিশুর শ্বরিরে কোন আঘাতের দাগ না দেখা গেলেও মিশুকে পয়জন খাইয়ে মেরে ফেলা হয়েছে। মিশুকে হত্যার পরে এই পরিবারের মাঝে ব্যাপক শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Powered by Dragonballsuper Youtube Download animeshow